যেভাবে ভোট হয় ইভিএমে

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোট গ্রহণ।তবে বেশিরভাগ মানুষ ইভিএমে কীভাবে ভোট দিতে হয় তা জানেন না।

দেশের ৬টি সংসদীয় আসনের সবগুলো কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোট দেয়ার ব্যবস্থা করেছে নির্বাচন কমিশন।

বৃহস্পতিবার নির্ধারিত ওই ছয়টি সংসদীয় আসনে অনুশীলনমূলক ভোট অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১০টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত ইভিএমের সব কেন্দ্রে একযোগে এ ভোট হবে।

ইভিএম প্রকল্পের অপারেশন প্ল্যানিং অ্যান্ড কমিউনিকেন্স বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম মাহমুদ আরাফাত এ তথ্য জানিয়েছেন।

ইসির জনসংযোগ পরিচালক যুগ্ম-সচিব এস এম আসাদুজ্জামান জানান, প্রতিটি কেন্দ্রে গড়ে পাঁচটি ভোটকক্ষ থাকে। ৪০০-৫০০ ভোটারের জন্য প্রতি ভোট কক্ষে থাকবে একটি করে ইভিএম। কোনো ধরনের ত্রুটি দেখা গেলে ‘স্ট্যান্ডবাই’ হিসেবে রাখা হবে তিনটি করে ইভিএম।

যেভাবে ভোট হয় ইভিএমে

ইভিএমে ভোটগ্রহণ নিয়ে বিভ্রান্তি দূর করতে দেশের বিভিন্ন স্থানে ইভিএম মেলা করেছিল নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ যন্ত্রে আঙ্গুলের ছাপ, ভোটার নম্বর, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর বা স্মার্ট পরিচয়পত্র ব্যবহার করে ভোটার শনাক্ত করা হয়। নির্দিষ্ট কেন্দ্রের ভোটকক্ষে একজন পোলিং অফিসার ভোটার ভেরিফিকেশনের কাজটি করবেন। ডেটাবেইজে ভোটার বৈধ বা অবৈধ হিসেবে শনাক্ত হলে প্রজেক্টরের মাধ্যমে তা দেখতে পান পোলিং এজেন্টরা।

ভোটার বৈধ হলে মেশিনে কুইক রেসপন্স কোড (QR CODE) এবং কিছু তথ্য সম্বলিত একটি টোকেন প্রিন্ট হবে, যা ভোটারকে দেয়া হয়।
ভোটার টোকেন নিয়ে সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তার কাছে গেলে ভোটিং মেশিনের QR CODE স্ক্যানারের মাধ্যমে তার টোকেন শনাক্ত করে গোপন কক্ষে থাকা ব্যালট ইউনিটে ব্যালট ইস্যু করা হবে।

ভোটার পছন্দের প্রার্থী ও প্রতীক দেখে বাম দিকের বোতামে চাপ দিয়ে সিলেক্ট করবেন। ওই ব্যালট ইউনিটে সবুজ রংয়ের CONFIRM বোতামে চাপ দিলে তার ভোট দেয়া হয়ে যাবে।

কখনও ভুল প্রতীক সিলেক্ট করা হলে, ব্যালট ইউনিটের লাল রংয়ের CANCEL বোতাম চেপে পরে যে কোনো প্রার্থীকে আবার সিলেক্ট করা যাবে।
এভাবে দুই বার CANCEL করা যাবে, তৃতীয়বার যেটি সিলেক্ট করা হবে সেটি বৈধ ভোট হিসেবে গৃহীত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *