সাকিবের ইতিহাস গড়া শতকের পরেও ১০৬ রানে হেরেছে বাংলাদেশ

খেলাধুলা

লক্ষ্য ৩৮৭ রান। এই পাহাড়সম লক্ষ্য টপকে জেতা অসম্ভই। বিশ্বকাপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ঠিক তাই হয়েছে। স্বাগতিক ইংল্যান্ডের রানের পাহাড়ে চাপা পড়েছে বাংলাদেশ। হেরেছে ১০৬ রানের বিশাল ব্যবধানে।

আজ শনিবার কার্ডিফে বাংলাদেশ হেরেছে ঠিক, তবে জিতেছেন সাকিব আল হাসান। ইংল্যান্ডের দুর্দান্ত বোলিং আক্রমণের সামনে ১১৯ বলে খেলেছেন ১২১ রানের চমৎকার ইনিংস। তাঁর এই ইনিংসের ওপর ভর করে বাংলাদেশ শেষ পর্যন্ত ২৮০ রান করে। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম ইতিহাস গড়ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড ওভালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অসাধারণ সেঞ্চুরি করেছিলেন এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। আবার আরেকটি বিশ্বকাপ চলছে। ইংল্যান্ডকে পেয়ে এবার জ্বলে উঠলেন সাকিব আল হাসান। করলেন বিশ্বকাপে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি। আর অবশ্য বাংলাদেশের পক্ষে তৃতীয় বিশ্বকাপ শতক।

গত বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পক্ষে দুটি সেঞ্চুরি করেছিলেন মাহমুদউল্লাহ, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। অবশ্য এর আগে চারটি বিশ্বকাপে শতকের দেখা পায়নি কোনো বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান।

সে ধারাবাহিকতায় চলমান বিশ্বকাপে এসে বাংলাদেশের পক্ষে তৃতীয় সেঞ্চুরি করলেন সাকিব। কার্ডিফে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডাউনে খেলতে নেমে ৯৫ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। বিশ্বকাপে এটি বাংলাদেশের দ্রুততম সেঞ্চুরি। শেষ পর্যন্ত সাকিব ১১৯ বলে ১২১ রান করেন।
বিশ্বকাপে প্রথম হলেও ওয়ানডেতে এখন পর্যন্ত আটটি সেঞ্চুরি করেছেন সাকিব। আর এবারের বিশ্বকাপের আগের দুই ম্যাচেও দারুণ উজ্জ্বল ছিলেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৭৫ ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে ৬৪ রান করেন তিনি।
এদিকে চলমান বিশ্বকাপে সাকিবের ঝুলিতে জমা পড়েছে বেশ কয়েকটি রেকর্ড। গত রোববার বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচে গড়েছিলেন দারুণ রেকর্ডও, ওয়ানডেতে দ্রুত পাঁচ হাজার রান ও ২৫০ উইকেট। ১৯৯ ম্যাচে তিনি এই কীর্তি গড়েছিলেন।
দুদিন বাদে গত বুধবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আরেকটি কীর্তি গড়েন সাকিব। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ২০০তম ম্যাচ খেলেন তিনি।
এর আগে বাংলাদেশের পক্ষে দুজন ২০০ বা তার চেয়ে বেশি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন। মাশরাফি বিন মুর্তজা ও মুশফিকুর রহিম। মাশরাফি ২১২ এবং মুশফিকুর রহিম ২০৮তম ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে নেমেছেন আজ।
এ ছাড়া তামিম ইকবাল ১৯৬ ও মাহমুদউল্লাহ ১৭৮টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে নেমেছেন বাংলাদেশ দলের হয়ে। আর সাকিব খেলছেন ২০১তম ম্যাচ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *